Sunday, October 15, 2017

মেয়ে (a sisterhood) গ্রুপের পরিচিতি ও আচরণবিধি

সিস্টারহুড মেয়ে নেটওয়ার্কের সাপোর্ট গ্রুপ। আমাদের ফেসবুক সাপোর্ট গ্রুপের নাম "মেয়ে: a sisterhood"। গ্রুপের সকল সদস্যকে নেটওয়ার্ক সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকতে হবে এবং আচরণবিধি মানতে হবে। আচরণবিধি পড়েবুঝেমেনে নিয়ে আপনি গ্রুপে আছেন বলে ধরে নেওয়া হবে। আচরণবিধি না পড়ার কারণে যদি নিয়ম না জেনে থাকেনএবং নিয়ম ভাঙেনসেক্ষেত্রে আপনার পোস্ট বা কমেন্ট মুছে দেওয়ারপ্রয়োজনে আপনাকে গ্রুপ থেকে রিমুভ বা ব্যান করার অধিকার অ্যাডমিনরা সংরক্ষণ করেন। নিয়ম মানতে না পারলে নির্বিবাদে গ্রুপ ত্যাগ করবেন। এই আচরণবিধি অ্যাডমিনমডারেটরস্বেচ্ছাসেবী সবার ক্ষেত্রে সমানভাবে প্রযোজ্য।

মেয়ে” কী?"
মেয়ে" বাংলাভাষী মেয়েদের একতার নেটওয়ার্ক। এটি আমাদের ভাবনার সূতিকাগারকর্মযজ্ঞের মঞ্চবন্ধুতার উঠোন। সিস্টারহুডসন্ধি এবং রাঙতা যথাক্রমে মেয়ের সাপোর্ট গ্রুপওয়েলফেয়ার প্রকল্প এবং উদ্যোক্তা প্রকল্প। মেয়ে” সম্পূর্ণ অলাভজনক এবং অরগানিক। মেয়ে কোনো এনজিও নয়

মেয়ের খরচ কীভাবে চলে?
সদস্যদের ব্যক্তিগত স্বেচ্ছাসেবা এবং অর্থায়নে। আমাদের আড্ডাইভেন্টক্যাম্পেইন সবকিছুতে আমরা নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী শ্রম ও টাকা দিই। আমাদের কিছু সচেতনতামূলক স্যুভেনির রয়েছে যার বিক্রয়মূল্য মেয়ের বিভিন্ন প্রকল্পের (মূলত সন্ধি) অর্থায়নে ব্যবহৃত হয়। মেয়ে যেকোনো বহিরাগত ফান্ড গ্রহণের বিপক্ষে।

মেয়ে: a sisterhood কী?
সিস্টারহুড মেয়ে নেটওয়ার্কের একটি সাপোর্ট গ্রুপ যেখানে মেয়েরা আড্ডা দেয়নিজেদের ভাবনাগুলো প্রকাশ করেপ্রয়োজনে পরস্পরের পাশে এসে দাঁড়ায়। মেয়ে: a sisterhood” এই সাপোর্ট গ্রুপের ফেসবুক শাখা যেটি অনলাইন নেটওয়ার্কিং এবং আইডিয়াবাজির জন্য ব্যবহৃত হয়। মেয়ে: a sisterhood পেইজ নয়।

মেয়ে পেইজ কী?
মেয়ে পেইজ মেয়ে নেটওয়ার্কের ফেসবুক মুখপাত্র। আমাদের কাজ ও চিন্তা নেটওয়ার্কের বাইরে ছড়িয়ে দেওয়ারনারীপুরুষ নির্বিশেষে সকল জেন্ডারের মানুষের সাথে ভাবনার মিথস্ক্রিয়ার কাজ করে মেয়ে পেইজ।
পেইজের লিংক - https://www.facebook.com/meyenetwork/

'মেয়েনেটওয়ার্কের শুরুটা কীভাবে হলোসিস্টারহুডের শুরুটা হলো কীভাবে?
২০১১'র ২৫ জুন তারিখে চেনাজানা মেয়েদের নিয়ে আলাপ আলোচনার জন্য খুবই আটপৌরেভাবে "মেয়ে" নামে দলটির পত্তন করেন তৃষিয়া নাশতারান। আস্তে আস্তে সেটি সমমনা নারীদের একটি সংরক্ষিত আড্ডার রূপ নেয়। সেখান থেকে বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু সামাজিকসাংস্কৃতিকউন্নয়নমূলক উদ্যোগ নেওয়া হয় যেগুলো অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করে। সংরক্ষিত দলটির এই গঠনমূলক অগ্রগতি থেকে উৎসাহিত হয়ে আরো বড় পরিসরে মেয়েদের নিয়ে আলাপ আলোচনার জন্য পরবর্তীতে ২০১৪ সালের ৫ জুন তারিখে "মেয়ে: a sisterhood"-এর যাত্রা শুরু হয়। 'মেয়েনেটওয়ার্কের উল্লেখযোগ্য কর্মকাণ্ডের সম্পর্কে জানতে পারবেন এখানে- https://goo.gl/gbbNnp (গ্রুপে যোগ দেওয়ার পরে দেখতে পাবেন)।

মেয়ে নেটওয়ার্কের অনলাইন অংশের মৌলিক কাঠামো এটা। এখানে যেই গ্রুপগুলো দেওয়া আছে সেগুলোতে আপনারা নিয়ম অনুযায়ী জয়েন রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে যোগ দিতে পারবেন। প্রতিটি গ্রুপের DESCRIPTION অংশে নিয়মের লিংক দেওয়া আছে। নিয়ম পড়ে সংশ্লিষ্ট পেইজে মেসেজ দিয়ে আলাপ করবেন।



কাদেরকে সিস্টারহুডে যোগ করা যাবে? সদস্য যোগ করার পদ্ধতি কী?
  • শুধুমাত্র আপনার পরিচিত নারীদেরকে সিস্টারহুডে যোগ করতে পারবেন। কোনো পুরুষকে এখানে যোগ করবেন না।
  • আপনি যাকে যোগ করবেনআপনি তার রেফারেন্স হবেন। আপনার যোগ করা কোনো মেয়ের কারণে গ্রুপে কোনো সমস্যা হলে আপনাকে প্রশ্ন করা হতে পারে। তাই ভেবেচিন্তে সদস্য যোগ করবেন।
  • মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে জানাবেন কাকে যোগ করতে চান।
  • যাকে যোগ করতে চান তাকে এই লেখাটি পড়তে দেবেন।
  • নিয়ম পড়ার পরে উক্ত ব্যক্তি মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে আপনার নাম উল্লেখ করে একটি কোড সংগ্রহ করবেন।
  • কোড পাওয়ার পরে উক্ত ব্যক্তি সিস্টারহুডে জয়েন রিকোয়েস্ট দেবেন এবং সেখানে জিজ্ঞেস করা তিনটি প্রশ্নের উত্তর দেবেন।

রেফারেন্স এবং কোড ছাড়া কোনো জয়েন রিকোয়েস্ট গ্রহণ করা হবে না।

সিস্টারহুডের প্রাইভেসি কেমনগ্রুপের পোস্ট কি গ্রুপের বাইরে কেউ দেখতে পায়?
  • এটি একটি ক্লোজড গ্রুপ। গ্রুপের সদস্য নয় এমন কেউ গ্রুপের পোস্ট দেখতে পারার কথা না।
  • মনে রাখবেনঅনলাইনে প্রাইভেসি বলতে আসলে কিছু নেই। হাজার যাচাইবাছাই করেও শতভাগ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব নয় যদি সদস্যরা সচেতন না হন। হাজার হাজার সদস্যের একটি গ্রুপে সবার সচেতনতার নিশ্চয়তা দেওয়া অসম্ভব। প্রাইভেসি নিশ্চিত করার প্রথম ধাপ হলো নিজের প্রোফাইলের প্রাইভেসি ঠিক রাখা। ব্যক্তিগত ছবিতথ্য পাবলিক রেখে কিংবা বন্ধু/বয়ফ্রেন্ড/হাজবেন্ডের সাথে পাসওয়ার্ড শেয়ার করে আপনি নিজের সাথে সাথে অন্যের প্রাইভেসিও হুমকির মুখে ফেলছেন। তাই সচেতন থাকুন। নিজের এবং অন্যের প্রাইভেসিকে সম্মান করুন।
  • তথ্য একটি শক্তিশালী হাতিয়ার। এমন কোনো তথ্য শেয়ার করবেন না যার অপপ্রয়োগ সহ্য করতে আপনি সক্ষম নন। খুব ব্যক্তিগত বা সংবেদনশীল আলাপের জন্য গ্রুপের নির্ধারিত বেনামি অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করুন।
  • গ্রুপের আলাপ যেন গ্রুপের বাইরে না যায় এ ব্যাপারে সচেষ্ট থাকুন।
  • মেয়ে নেটওয়ার্কের শাখা ছাড়া অন্য গ্রুপের আলাপ এই গ্রুপে টেনে আনবেন না।
  • গ্রুপের সদস্য নয় এমন কারো ছবি বা গল্প গ্রুপের মধ্যে শেয়ার করার আগে ওই ব্যক্তির অনুমতি নিয়ে নিন। অনুমতি নেওয়ার সুযোগ না থাকলে ছদ্মনাম ব্যবহার করুন। স্ক্রিনশটে নাম,      চেহারা ঘোলা করে দিন।
  • গ্রুপের বাইরে গ্রুপ বা সংশ্লিষ্ট কিছু নিয়ে কটূক্তি করাকে গ্রুপের সদস্যদের প্রতি অসম্মানজনক আচরণ গণ্য করা হবে।
  • সদস্যদের প্রাইভেসি বিষয়ক সমস্যা তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার বলে গণ্য হবে এবং তা ব্যক্তিগত পর্যায়েই মীমাংসা করতে হবে। এর সাথে গ্রুপকে জড়ানো যাবে না। (প্রাইভেসির বিধিনিষেধ শিশু এবং সেলিব্রেটিদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য)

প্রকাশ্যে মনের কথা বলতে সংকোচ বোধ করলে কী করবেন?
নিজের পরিচয় আড়াল করে মনের ভাব প্রকাশ করার জন্য নির্ধারিত বেনামি অ্যাকাউন্ট আছে আমাদের। বেনামি আইডি সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এই লিংক অনুসরণ করুন- https://goo.gl/VmBpwR (গ্রুপে যোগ দেওয়ার পরে দেখতে পাবেন)।

গ্রুপে যা যা বারণ
  • ব্যক্তিআক্রমণ: ব্যক্তিগত রেষারেষি গ্রুপে টেনে আনবেন না। পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করুন। ঝগড়া নয়যুক্তি দিয়ে তর্ক করুন।
  • জাজমেন্টাল মতপ্রকাশ: ধর্মবর্ণশারীরিক বৈশিষ্ট্যসেক্সুয়ালিটি ইত্যাদি যেসব বিষয় ব্যক্তির নিয়ন্ত্রণাধীন নয় সেগুলোর ভিত্তিতে কাউকে বিচার করবেন না। এই বিধিনিষেধ পাবলিক ফিগারদের ব্যাপারেও প্রযোজ্য। আমাদের বেনামি পোস্টে জাজমেন্টাল ভাবনাঅসংবেদনশীল মতামতমোরাল পুলিসিং সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ।
  • প্রাইভেসি লঙ্ঘন: গ্রুপ থেকে পাওয়া কোনো তথ্য বিনা অনুমতিতে গ্রুপের বাইরে প্রকাশ করবেন না কিংবা গ্রুপের সদস্য নয় এমন কারো ব্যক্তিগত তথ্য বা ছবি গ্রুপে প্রকাশ করবেন না।
  • ধর্মপ্রচারধর্মীয় কলহ: ধর্ম একান্ত ব্যক্তিগত ও সংবেদনশীল একটি ব্যাপার। পরস্পরের বিশ্বাসকে সম্মান করুন। গ্রুপকে ধর্মপ্রচারের কাজে ব্যবহার করবেন না। ধর্মীয় বিশ্বাসকে ভিত্তি করে কলহে জড়াবেন না। [ধর্মীয় আলাপের জন্য আমাদের ধর্মমত নামের গ্রুপে যোগ দিতে পারেন]
  • ফ্লাডিং: ফ্লাডিং মানে মুহুর্মুহু পোস্টের বন্যা বইয়ে দেওয়া। নিজের পোস্ট দিয়ে গ্রুপের ওয়াল ভরিয়ে ফেলবেন না। সবাইকে কথা বলার সুযোগ দিন। একজন সদস্য দিনে সর্বোচ্চ দুইটা পোস্ট দিতে পারবেন।
  • হোক্স ছড়ানো: হোক্স মানে মিথ্যে তথ্য। ইন্টারনেটে এমন অনেক হোক্স ঘুরেফিরে বেড়ায়। গ্রুপে কোনো তথ্য শেয়ার করার আগে যাচাইবাছাই করে সত্যতা নিশ্চিত করে নিন।
  • অর্থহীন কমেন্ট করা: নোটিফিকেশন পেতে কেউ কেউ কেউ F, . ইত্যাদি অর্থহীন কমেন্ট করেন। এ ধরনের কমেন্ট দেখামাত্র মুছে দেওয়া হবে। পুনরাবৃত্তি ঘটলে সদস্যকে রিমুভ করা হবে। নোটিফিকেশন পেতে হলে পোস্টের উপরে ডান কোনায় Turn on notification for this post-এ ক্লিক করুন।
  • কেনাবেচাবিজ্ঞাপন: কেনাবেচাবিজ্ঞাপনের জন্য "হুটহাটগ্রুপটি খোলা হয়েছে। সেখানে নির্দ্বিধায় কেনাবেচা/লেনদেন/আত্মপ্রচার করুন। কোনো পণ্যের খোঁজখবর, রিভিউ বিষয়ক পোস্টও এই আওতায় পড়বে। পাকিস্তানিরেপ্লিকা পণ্যের ব্যবসা সম্পূর্ণভাবে পরিহার্য। ভারতীয় পণ্যের ব্যবসাও উৎসাহিত করা হবে না।
  • অস্বস্তিকর ছবি/ভিডিও পোস্ট করা: অন্যের মনে চাপ সৃষ্টি করতে পারেঅস্বস্তি জাগাতে পারে এমন ছবি বা ভিডিও পোস্ট করবেন না। নিতান্তই পোস্ট করতে হলে পোস্টের শুরুতে সতর্ক করে দেবেন। মূল পোস্টে ছবি/ভিডিও না দিয়ে পোস্টের কমেন্টে দেবেন।
  • অপ্রাসঙ্গিক ছবি পোস্ট করা: আপনার যদি মনে হয় কোনো পোস্টে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে ছবি যোগ করা প্রয়োজনসেক্ষেত্রে প্রাসঙ্গিক ছবি দিন।
  • গ্রুপে চিকিৎসা চাওয়া/দেওয়া: গ্রুপে চিকিৎসকের খোঁজ করতে পারেন। চিকিৎসার নয়। কোনো ডাক্তার চিকিৎসাবিষয়ক সহযোগিতায় আগ্রহী হলে নিজ দায়িত্বে ইনবক্সে আলাপ করুন। ডাক্তার নন এমন কেউ কখনোই চিকিৎসাবিষয়ক পরামর্শ দেবেন না।
  • অন্যের ব্যক্তিগত ছবি শেয়ার করা: অন্যের ব্যক্তিগত ছবি শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন। কোনো আলোচনা বা গল্পের সাথে নিজের একাধিক ছবি শেয়ার করার প্রয়োজন বোধ করলে কোলাজ আকারে দিনযাতে আপনার ছবিতে গ্রুপের ওয়াল ভরে না যায়। শিশুদের ক্ষেত্রেও এই নিয়ম প্রযোজ্য।
  • ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করা: ঠিকানাফোন নাম্বার ইত্যাদি ব্যক্তিগত তথ্য গ্রুপে প্রকাশ্য রাখবেন না। চেক-ইন করে নিজের অবস্থান জানাবেন না।
  • দাম্পত্য তথ্য শেয়ার করা: দাম্পত্য সমস্যাযৌনতা নিয়ে গঠনমূলক আলোচনাকে আমরা স্বাগত জানাই। দাম্পত্য আলাপের সূত্রে এমন কোনো তথ্য শেয়ার করবেন না যাতে আপনার সঙ্গীর প্রাইভেসি লঙ্ঘিত হয়।
  • আপত্তিকর ব্যক্তি বা পেইজের পোস্ট লাইক/শেয়ার করা: আপনি কী লাইক করেনকী শেয়ার করেন তা আপনার চিন্তাভাবনাদৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করে। আপত্তিকর ব্যক্তি ও পেইজের তালিকা পাবেন গ্রুপে। এসব ব্যক্তি বা পেইজের পোস্ট গ্রুপে শেয়ার করবেন না। নিজের টাইমলাইনে শেয়ার করলেও আপনাকে গ্রুপ থেকে রিমুভ/ব্যান করা হতে পারে। আপত্তিকর ব্যক্তি বা পেইজের ব্যাপারে সচেতন করতে চাইলে পাবলিক পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করবেন। লিংক শেয়ার করবেন না।
  • দ্বিমুখী আচরণ: গ্রুপের বাইরে যদি আপনার এমন কোনো আচরণের প্রমাণ পাওয়া যায় যা আমাদের আদর্শের পরিপন্থী, সেক্ষেত্রে আপনাকে মেয়ে নেটওয়ার্ক থেকে অব্যাহতি দেওয়া হবে।
  • টাইমলাইনের পোস্ট গ্রুপে কপিপেস্ট করা: নিজের বা অন্যের টাইমলাইনের পোস্ট শেয়ার করতে চাইলে মূল পোস্ট শেয়ার করবেন। কপিপেস্ট করবেন না।
  • মেটা-পোস্টিং: কোনো পোস্টের প্রতিক্রিয়ার নতুন পোস্টের অবতারণা করবেন না। কমেন্টের শব্দসীমা অতিক্রম না করলে সংশ্লিষ্ট পোস্টেই আলাপ করুন।
  • পাত্র/পাত্রীর সন্ধান: কেমন পাত্র/পাত্রীর জন্য কেমন পাত্রী/পাত্র খুঁজছেন জানিয়ে Joogle পেইজে মেসেজ পাঠান।


যেসব ক্ষেত্রে কিছুটা খেয়াল রাখতে অনুরোধ করা হয়
  • বাংলিশে লেখালেখি: বাংলায় লিখলে সবথেকে ভালো হয়। ইংরেজিও চলবে। বাংলিশ পোস্ট গ্রহণযোগ্য নয়। বাংলিশে কমেন্ট লিখলে চেষ্টা করুন সেটা সংক্ষিপ্ত (সর্বোচ্চ ২ লাইন) রাখতে।
  • নিজের ছবি শেয়ার করা: প্রাসঙ্গিক না হলে নিজের ছবি শেয়ার করবেন না। ছবির সাথে ছবির পেছনের গল্প যেন লেখা থাকে। একাধিক ছবি শেয়ার করতে হলে কোলাজ করে দেবেন। একই ধরনের একাধিক ছবি দেবেন না।
  • সাজগোজরান্নাবান্না ইত্যাদি: এসব নিত্যনৈমত্তিক আলাপের জন্য আমাদের একটি লাইফস্টাইল গ্রুপ আছে হাওয়াই মিঠাই নামে। সেখানে যোগ দিতে মেয়ে পেইজে মেসেজ করুন।
  • অ্যাডমিন/মডারেটরদের ইনবক্স করা: গ্রুপ এবং নেটওয়ার্ক সংক্রান্ত কোনো ব্যাপারে অ্যাডমিন/মডারেটরদের ইনবক্সে মেসেজ পাঠাবেন না। এসব ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট পেইজে মেসেজ পাঠাবেন।
  • পোস্টে ক্যাপশন যুক্ত করা: গ্রুপে কোনো লিংক বা ছবি শেয়ার করতে হলে তার সাথে কিছু বর্ণনা লিখে দেবেন যা পড়ে ওই লিংক/ছবি সম্পর্কে আপনার মনোভাব বোঝা যায়। ক্যাপশনবিহীন পোস্ট মুছে দেওয়া হতে পারে।


যেসব ক্ষেত্রে অ্যাডমিনের অনুমোদন লাগবে (অনুমোদনের জন্য মেয়ে পেইজে মেসেজ পাঠাবেন)
  • সিস্টারহুডহাওয়াইমিঠাই এবং ধর্তেমতে যোগ দিতে: এই তিনটি গ্রুপে যোগ দিতে এবং প্রয়োজনীয় কোড সংগ্রহ করতে মেয়ে পেইজে মেসেজ পাঠান। (হুটহাটে যোগ দিতে রাঙতা পেইজে মেসেজ পাঠাবেন)।
  • লাইক/ভোট চাওয়া, জরিপ করা: কোনো কারণে লাইক বা ভোট চাইতে হলে, কিংবা জরিপ চালাতে হলে অনুমতি নিন। লাইক বা ভোটের জন্য সদস্যদেরকে ইনবক্সে বিরক্ত করবেন না।
  • তথ্য সংগ্রহ করা: ব্যক্তিগত প্রয়োজনে গ্রুপ থেকে তথ্য সংগ্রহ করতে হলে পেইজে মেসেজ দিয়ে অনুমতি নিন। আপনার প্রয়োজন 'মেয়ে'র সাথে সাংঘর্ষিক কি না তা বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দেওয়া হবে।
  • সদস্য সংগ্রহ করা: 'মেয়ে'র নিজস্ব উদ্যোগ নয় এমন যেকোনো উদ্যোগের জন্য গ্রুপ থেকে সদস্য/স্বেচ্ছাসেবী খুঁজতে হলেকিংবা নতুন গ্রুপ বানাতে চাইলে পেইজে মেসেজ দিয়ে জানান। আপনার উদ্যোগ 'মেয়ে'র সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কি না তা বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দেওয়া হবে।
  • ডক/অ্যালবাম খোলা: কোনো প্রয়োজনে ডক/অ্যালবাম খুলতে হলে জিজ্ঞেস করে নিন।
  • কমেন্ট অপশন বন্ধ করাপোস্ট মোছা: অ্যাডমিনের অনুমতি ছাড়া আর কেউ পোস্টের কমেন্ট অপশন বন্ধ করবেন নাপোস্ট মুছবেন না।
  • প্রচারণা: আপনার কোনো কাজ সম্পর্কে প্রচারণার প্রয়োজন হলে পেইজে মেসেজ দিয়ে জানান। প্রয়োজনে অ্যাডমিন আপনার হয়ে পোস্ট দেবেন।
  • ব্যবসায়িক আলোচনা: নিজের কাজ শেয়ার করা বা অন্যদের সাথে আলোচনা করার আগে পেইজে মেসেজ দিয়ে আলাপ করে নিন।
  • অর্থনৈতিক লেনদেন: কোনো কাজে গ্রুপে অর্থ সংগ্রহ করতে হলেযেকোনো আর্থিক যোগাযোগে গ্রুপের কোনোরকম সহযোগিত নিতে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণসহ পেইজে মেসেজ দিয়ে অনুমতি নিন। এসব ক্ষেত্রে কীভাবে পোস্ট দেবেন সেটা জানিয়ে দেওয়া হবে। প্রয়োজনে অ্যাডমিন নিজে আপনার হয়ে পোস্ট দেবেন। বিনা অনুমতিতে পোস্ট দিলে সেটা মুছে দেওয়া হতে পারে।

গ্রুপের মেয়েদের অনেকের অনেক গল্প আছে। এগুলো গ্রুপের বাইরে শেয়ার করা যাবে?
বিনা অনুমতিতে গ্রুপের আলাপ গ্রুপের বাইরে শেয়ার করা সম্পূর্ণ নিষেধ। কেউ তার গল্প স্বনামে বা বেনামে পোস্ট করলে সেটা তার অনুমতিক্রমে আমাদের মেয়ে পেইজে বা ব্লগে দেওয়া হয়। সেখান থেকে গল্প শেয়ার করা যাবে। কেউ নিজের গল্প আমাদের পেইজে বা ব্লগে দিতে চাইলে স্মিতা দাস কিংবা নাফিসা তানজীম নিপুণকে ট্যাগ করে জানাবেন। আমাদের পেইজ বা ব্লগে প্রকাশিত লেখা ১৬৮ ঘণ্টা (৭ দিন) পর্যন্ত অনন্য থাকতে হবে। মানে তার আগে অন্য কোনো পেইজপত্রিকা বা ব্লগে প্রকাশ করা যাবে না।

এই গ্রুপের কথা বাইরে প্রচার করা যাবে?
অবশ্যই যাবে। তবে অনুমতিসাপেক্ষে। এই গ্রুপ থেকে কোনো তথ্য গ্রুপের বাইরে ব্যবহার করতে চাইলে অবশ্যই তথ্যদাতা ও অ্যাডমিনদের অনুমতি নেবেন (পেইজে মেসেজ দিয়ে)। গ্রুপ থেকে উপকৃত হলে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করবেন।

কীসের ভিত্তিতে মেম্বার রিমুভ/ব্যান করা হবে?
কোনো প্রোফাইল ফেইক কিংবা ব্যবসায়িক বোঝামাত্র রিমুভ করা হবে। এছাড়া দীর্ঘদিনের নিষ্ক্রিয়তার কারণেগ্রুপের নিয়মভঙ্গের কারণেগ্রুপের ভেতরে বা বাইরে আপত্তিকর আচরণের কারণে কিংবা সদস্যদের অভিযোগের ভিত্তিতে সদস্যদের রিমুভ/ব্যান করা হয়। তবে অভিযোগ করলেই যে মেম্বার রিমুভ/ব্যান করা হবে তা নয়। গ্রুপের আবহ বজায় রাখতে এ ধরনের হাউজকিপিং আলাপ গ্রুপে প্রকাশ্যে করাকে নিরুৎসাহিত করা হয়।

কোনো পোস্ট বা কমেন্টের ব্যাপারে আপত্তি থাকলে কী করবেন?
কোনো পোস্ট বা কমেন্টের ব্যাপারে ভিন্নমত পোষণ করলে আপনার সুগঠিত মতামত জানান। যুক্তিতর্কে জড়াতে না চাইলে পোস্ট হাইড করুনএড়িয়ে যান। কোনো পোস্ট আপত্তিকর মনে করলে পোস্টের উপরে ডান কোনায় Report to Admin অপশনে ক্লিক করে রিপোর্ট করুন। কোনো কমেন্ট আপত্তিকর মনে হলে অ্যাডমিন ও মডারেটরদের ট্যাগ করে দিন। কোনো অবস্থাতেই কাউকে আঘাত করে কিছু বলবেন না। কারা অ্যাডমিন/মডারেটর সেটা জানতে এই লিংকে যান: https://www.facebook.com/groups/meye5614/admins
গ্রুপ বিষয়ক আলাপে অ্যাডমিন বা মডারেটরদের ব্যক্তিগত ইনবক্সে মেসেজ পাঠাবেন না।

কোনো সদস্যের ব্যাপারে আপত্তি/অভিযোগ থাকলে কী করবেন?
কোনো সদস্যের আচরণে বা কাজে অসন্তোষ থাকলে প্রথমে ব্যক্তিগত পর্যায়ে আলাপ করে সুরাহা করার চেষ্টা করবেন। তাতে কাজ না হলে প্রমাণসহ মেয়ে পেইজে লিখিত অভিযোগ জানাবেন। কোনোভাবেই কাউকে যেন আক্রমণ করা নাহয়হেয় প্রতিপন্ন করা নাহয় সে ব্যাপারে সবসময় সচেষ্ট থাকতে হবে।

আপনার পোস্ট অ্যাপ্রুভ না করা হলে কী করবেন?
সাধারণত উল্লিখিত বিধিনিষেধ ভঙ্গ করার কারণে পোস্ট অ্যাপ্রুভ করা হয় না। আপনার পোস্ট অ্যাপ্রুভ না করা হলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে কারণ জানতে চাইতে পারেন। সেক্ষেত্রে পোস্টের স্ক্রিনশট জুড়ে দেবেন মেসেজের সঙ্গে।

মেয়ের স্বেচ্ছাসেবী হতে চাইলে কী করতে হবে?
আমাদের ইভেন্টক্যাম্পেইনগুলোতে অংশগ্রহণ করতে হবে। আপনার নিজস্ব কোনো আইডিয়া থাকলে সেটা গ্রুপে পোস্ট দিয়ে কিংবা পেইজে মেসেজ দিয়ে জানাবেন। আমরা সবাই মিলে সেটা নিয়ে একসাথে কাজ করতে পারি।

মেয়ের বন্ধু সংগঠন হওয়ার উপায় কী?
নিজস্ব উদ্যোগের বাইরে যেসব উদ্যোগ বা সংগঠনের সাথে মেয়ে নেটওয়ার্ক কাজ করে তাদেরকে আমরা বন্ধু সংগঠন বলি। 'মেয়ে'র বন্ধু হতে চাইলে 'মেয়েপেইজে মেসেজ দিয়ে আলাপ করতে হবে। আপনার উদ্যোগ/সংগঠন 'মেয়ে'র সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কি না তা বিবেচনা করে বন্ধুত্ব স্থাপন করা হবে। বন্ধুত্বের পরিধি আলোচনাসাপেক্ষ। এনজিও কিংবা দাতাসংস্থানির্ভর কোনো সংগঠনের সাথে আমরা বন্ধুত্ব স্থাপন করি না।

সবশেষ কথা
মেয়েকে নিজের মনে করুন। নিজের কাণ্ডজ্ঞান ব্যবহার করুন। পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও সহনশীল থাকুন। দায়িত্ব নিন। নিজেকে মেয়ের অংশ করে তুলুন।

Sunday, July 23, 2017

হাজেরা বেগমের শিশুরা

হাজেরা বেগমের কথা প্রথমে বলেছিলেন জোবাইদা নাসরীন। উনি আমাদের মেয়ে নেটওয়ার্ক-এর সদস্য। সন্ধি এই মেয়ে নেটওয়ার্ক-এর একটি স্বেচ্ছাসেবী দল। সন্ধি'র ব্যাপারে জেনে জোবাইদা আপা বলেছিলেন হাজেরা বেগমের পাশে দাঁড়ানোর কথা। সে সময় আমরা পার্বত্য অঞ্চলের দুর্গতদের জন্য অর্থ সংগ্রহ করছিলাম। হাজেরা বেগমের সাথে তাই যোগাযোগ করতে দেরি হলো কিছুদিন। এর মধ্যে ফেসবুকে একটা ভিডিও চোখে পড়ল হাজেরা বেগমকে নিয়ে।



জোবাইদা আপা ততদিনে নিজে গিয়ে হাজেরা আপার সাথে দেখা করে এসেছেন। জোবাইদা আপার কাছ থেকে নাম্বার নিলাম হাজেরা বেগমের। ফোন দিলাম। কথা হলো। আমাদের কেউ কেউ টাকা দিতে চাইছিলো। কিন্তু হাজেরা আপা দেখা না করে টাকা নেবেন না। উনি চান আমরা যাই, বাচ্চাদের সাথে কথা বলি, ওদের সাথে সময় কাটাই। তারপর যা ইচ্ছে দেই। জিজ্ঞেস করেছিলাম উনাদের কী লাগবে। হাজেরা আপা বললেন, "আপনারা যা দেবেন তা-ই আমাদের লাগবে।"

গতকাল (২২ জুলাই) আমরা তিনজন গেলাম উনার আদাবরের বাসায়। বাচ্চারা আমাদের জন্য অপেক্ষা করছিলো। আমরা ঢুকতেই হইহই করে উঠল। ছোট্ট একটা মেয়ে, বয়স তিন বা চার, আমাকে জিজ্ঞেস করল, "তুমিই কি তিসিলা আপু?"

ওর নাম হাফসা। হাজেরা বেগমের ৪০ জন শিশুর মধ্যে সম্ভবত কনিষ্ঠতম। সবথেকে বড়জন ক্লাস নাইনে পড়ে। ওরা স্কুলে যায়, সন্ধ্যায় প্রাইভেট পড়তে যায়, গান শিখতে যায়। আটজন আছে বোর্ডিং স্কুলে। ৩২ জন শিশু নিয়ে দুই কামরায় অসম্ভবকে সম্ভব করে চলেছেন হাজেরা বেগম। তাঁর নিয়মিত কোনো অর্থসংস্থান নেই। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু শিক্ষার্থী বিভিন্নভাবে সহায়তা করে উনাকে। কেউ কেউ জাকাতের টাকা দেয়। আটটি শিশুকে স্পন্সর করে একটি সংস্থা। বাকি শিশুদের নিয়ে এই বাসায় উনার মাসিক খরচ ৬৫ হাজার ছাড়িয়ে যায়।

এখানকার শিশুদের প্রায় সবাই যৌনকর্মীদের সন্তান। হাজেরা বেগম নিজে প্রাক্তন যৌনকর্মী। এই পেশার বঞ্চনা, যাতনার অভিজ্ঞতা থেকে শিশুগুলোর ভবিষ্যত তাকে ভাবায়। তাঁর ভাবনামতে যৌনকর্মীদের সন্তানেরা সবার পিছে, সবহারাদের নিচে। এমনকি ভিখারির সন্তানেরাও স্কুলে যাবার, সমাজের অংশ হবার সুযোগ পায়। যৌনকর্মীদের সন্তানদেরকে সমাজ স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করতে নারাজ। এই শিশুদেরকে শিক্ষা দিয়ে সুযোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে, নিজের অধিকারের জন্য লড়াই করতে শেখাতে চান হাজেরা বেগম। যেই শৈশব তিনি নিজে পাননি, তেমন একটি সুন্দর শৈশব এই শিশুদেরকে দিতে চান তিনি।



হাজেরা বেগম যা করছেন তা রীতিমতো অসাধ্য বলা চলে। আমরা তাই উনাকে সহযোগিতা করার ঔদ্ধত্ব দেখাতে চাই না। আমাদের সীমিত সাধ্য দিয়ে বড়জোর উনার ভার সামান্য হলেও লাঘব করার চেষ্টা করতে পারি হয়ত। সন্ধি কোনো এনজিও নয়, আমাদের অনেক অনেক টাকা নেই। এটি নিতান্তই ছাপোষা কিছু মানুষের ছোট্ট একটি নেটওয়ার্ক। হাজেরা আপার সাথে কথা বলে আমরা বুঝতে চেষ্টা করেছি কীভাবে আমরা উনার পাশে থাকতে পারি।

এক সন্ধ্যার আলাপে যে পথগুলো পেলাম সেগুলো হলো:

(১) শিশুদের স্পন্সর করা: 
প্রতি শিশুর জন্য মাসিক খরচ ৩ হাজার টাকা। আমাদের মধ্যে কেউ কেউ বাচ্চাদের স্পন্সর করার ব্যাপারে খোঁজখবর করেছেন অতীতে। একজন করে শিশুর দায়িত্ব নেওয়ার সামর্থ্য আমাদের অনেকেরই আছে নিশ্চয়ই।

আপডেট: হাজেরা আপার সব শিশু এখন স্পন্সরশিপের আওতায় আছে।

(২) পড়ালেখার সরঞ্জাম দেওয়া:
উনাদের দরকার খাতা, কাগজ। অব্যবহৃত ডায়েরি, কাগজ কিংবা ব্যবহৃত কাগজের এক পিঠ খালি থাকলে সেটাও দিতে বলেছেন। আমাদের অনেকের অফিসে অনেক কাগজ নষ্ট হয়। অনেক ডায়েরি দুয়েক পাতা লিখে পড়ে থাকে। কারো কাছে অব্যবহৃত কিংবা অল্প ব্যবহৃত ডায়েরি থাকলে উনাদের দিতে পারেন। বাচ্চাদের দেওয়ার মতো গল্পের বই থাকলেও দেবেন। 

(৩) সরাসরি টাকা দেওয়া: 
সরাসরি হাজেরা বেগমের সাথে যোগাযোগ করে হাতে হাতে কিংবা বিকাশে টাকা দিতে পারেন। শিশুদের একটি স্থায়ী আবাস গড়তে হাজের আপা একটি জমি কিনতে চাচ্ছেন। চাইলে সেই জমির জন্য টাকা দিতে পারেন। তবে দেখা না করে, বাচ্চাদের সাথে সময় না কাটিয়ে শুধু টাকা নিতে উনি নারাজ। 


একটা ব্যাপার লক্ষণীয়। হাজেরা আপা চান উনার শিশুরা যেন ভালোবাসা পায়, আনন্দে থাকে। খাদ্য বস্ত্র বাসস্থান শিক্ষা চিকিৎসার প্রয়োজন অবশ্যই আছে। কিন্তু ভালোবাসা ছাড়া কোনো শিশুই মানুষ হয় না, এটা হাজেরা আপা খুব বোঝেন। আমরা যদি উনার শিশুদের সাথে বসে গল্প করি, ছবি আঁকি, গান গাই, এতেও ওরা খুশি হবেন। যাদের আর্থিক সাহায্য দেবার সুযোগ নেই, তারা অন্তত ভালোবাসাটুকু দিতে পারেন। আর্থিক সহায়তার থেকে তা কোনো অংশেই কম নয়। 

কেউ কেউ শিশুদেরকে নিয়মিত পড়ানোর, ছবি আঁকতে শেখানোর ব্যাপারে ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। এই ইচ্ছেগুলো পূরণ করতে পারলে কী যে দারুণ হবে তা বলার নয়। সেই সাথে এটাও ভাবতে অনুরোধ করব যে আসলেই কি নিয়মিত ওদের সময় দেওয়া আপনার পক্ষে সম্ভব কি না। জীবনের ব্যস্ততায় কথা দিয়ে কথা না রাখতে পারলে শিশুদের মন ভেঙে যাবে। অনেক বড় প্রতিশ্রুতি না দিয়ে এক বেলা ওদের সাথে বসে যে যা পারেন তা শিখাতে পারেন ওদের। 

সবশেষ প্রসঙ্গ। কীভাবে কার সাথে যোগাযোগ করবেন?
হাজেরা আপার সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন। উনার মোবাইল নাম্বার +8801712371196। উনার বিকাশ অ্যাকাউন্টও এই নাম্বারেই।

উনার ঠিকানা:
শিশুদের জন্য আমরা
হাউজ ৬/২ (দোতলা)
লুৎফর রহমান লেন
সুনিবিড় হাউজিং সোসাইটি
আদাবর, ঢাকা - ১২০৭

আদাবরে গিয়ে শনিরবিল মসজিদ বললে যে কেউ দেখিয়ে দেবে। গুগল ম্যাপে Sunibir Jame Mosque নামে পাবেন। মসজিদের সামনে গিয়ে হাজেরা আপাকে কল দিলেই হবে। 

হাজেরা আপা এবং তার সংস্থা "শিশুদের জন্য আমরা"র ব্যাপারে জানতে পারবেন উনাদের ব্রোশিওর থেকে। লিংক- https://goo.gl/vKQJYe

প্রবাসীরা সন্ধি'র পেপ্যালের মাধ্যমে কিংবা ব্যাংকে টাকা পাঠাতে পারেন। আপনার পাঠানো টাকার শতভাগ হাজেরা বেগমকে দেওয়া হবে। কেউ সশরীরে বইখাতা, কাগজ, ডায়েরি ইত্যাদি দিতে না পারলে সন্ধিকে দিতে পারেন। আমরা গিয়ে দিয়ে আসব ওদের।

বিস্তারিত জানতে সন্ধি'র ফেসবুক পেইজে মেসেজ পাঠান। তার আগে অবশ্যই সন্ধি'র ব্যাপারে ধারণা নিয়ে নিন। আমাদের চেনেন, আমাদের কাজ জানেন এবং আমাদের বিশ্বাস করেন, শুধুমাত্র এমন বন্ধুদের নিয়ে কাজ করে সন্ধি

সন্ধি'র ফেসবুক পেইজ: https://www.facebook.com/shondhi2013/



আপডেট (২১ নভেম্বর ২০১৭):

  • 'মেয়ে' নেটওয়ার্কের ২৪ জন সদস্য হাজেরা বেগমের ২৫ জন শিশুকে স্পন্সর করছে। বাকি শিশুদেরকে আগে থেকে স্পন্সর করছে অন্য একটি সংগঠন।
  • 'মেয়ে' নেটওয়ার্কের কিছু সদস্য এককালীন কিছু টাকা দিয়েছিলেন। হাজেরা বেগম নগদ টাকা না নিয়ে চেয়েছিলেন সেই টাকা দিয়ে আমরা তার শিশুদের জন্য একটি লকার বানিয়ে দিই। লকার প্রায় তৈরি। আশা করি এ সপ্তাহের মধ্যে দিয়ে আসতে পারব।
  • আমরা যে যতটুকু পারছি হাজেরা বেগমের বাসায় গিয়ে দেখা করছি, শিশুদের সাথে সময় কাটাচ্ছি।


আপডেট (২৪ নভেম্বর ২০১৭):
গত শুক্রবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে আমরা কজন গেছিলাম হাজেরা আপাকে আলমারি দিয়ে আসতে। 


সে বিশাল এক দক্ষযজ্ঞ হলো। আলমারি সুন্দর হয়েছে। হাজেরা আপা এবং বাচ্চাদের পছন্দ হয়েছে। 


জিহান আপুর পাঠানো উপহার আর নাদিরা আপুর পাঠানো চকলেট পেয়ে বাচ্চারা যারপরনাই অভিভূত। 



কাদের ষ্টীল ফার্নিচারকে ধন্যবাদ বিশাল ডিসকাউন্টের জন্য। 

হাজেরা আপার শিশুদের কথা শুনে উনারা নিজে থেকে লাভ কমিয়ে এনেছেন। উনারা খুবই খুশি হয়েছেন এই কাজের সাথে যুক্ত হতে পেরে।

আপডেট (১০ ডিসেম্বর ২০১৭):
২৫ জন শিশুর ডিসেম্বরের খরচ হাজেরা আপাকে দিয়ে আসা হয়েছে।

লেখক:
Trishia Nashtaran
Originator and Coordinator, Meye Network

Sunday, July 16, 2017

ধর্মমত (DhormoMot)-এর আচরণবিধি


ধর্মমত 'মেয়ে' নেটওয়ার্ক'-এর আওতায় বাংলাভাষী নারীদের ধর্ম বিষয়ক গঠনমূলক আলোচনার জায়গা। ধর্ম নির্বিশেষে পরস্পরকে গ্রহণ, সম্মান ও সহাবস্থান করতে পারা এবং যুক্তিবোধ দিয়ে ধর্মকে দৈনন্দিন জীবনচর্চার প্রাসঙ্গিক অংশ করে তোলা 'ধর্মমত'-এর বিশেষত্ব। সদস্যরা অবশ্যই 'মেয়ে নেটওয়ার্ক' সম্পর্কে মৌলিক ধারণা রাখবেন এবং গ্রুপের আচরণবিধি মেনে চলবেন।


মেয়ে নেটওয়ার্ক সম্পর্কে জানতে পারবেন এই লিংকে - http://meye2012.blogspot.com/2017/07/sisterhood.html

কোনো প্রশ্ন বা অভিযোগ থাকলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দেবেন। লিংক- https://www.facebook.com/meyenetwork/

পরিস্থিতির প্রয়োজনে গ্রুপের আচরণবিধি নিয়মিত আপডেট হবে। আপাতত কিছু মৌলিক বিধিনিষেধ রইলো এখানে:
  • খোলামনে যুক্তি দিয়ে আলাপ করার মানসিকতা রাখতে হবে। নিজের বক্তব্যের সপক্ষে উপযুক্ত তথ্যসূত্র উপস্থাপন করতে হবে।
  • কাউকে আঘাত করে (প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে) কিছু বলা যাবে না।
  • রেসিজম, সেক্সিজম, হোমোফোবিয়া, ছাগুত্ব, পাকিপ্রেম ইত্যাদির বিপক্ষে কঠোর অবস্থান থাকবে আমাদের। এই শব্দগুলোর অর্থ ও তাৎপর্য নিজ দায়িত্বে জেনে নিন।
  • চেষ্টা করুন বাংলায় আলাপ করতে (বাংলিশে না)। ইংলিশও চলবে।
  • কোনো ছবি বা লিংক শেয়ার করতে হলে অন্তত দুই লাইন বর্ণনা জুড়ে দিন।
  • এমন কোনো তথ্য বা ছবি শেয়ার করবেন না যার অপপ্রয়োগ সহ্য করতে আপনি অক্ষম।
  • হোক্স (মিথ্যা খবর) শেয়ার করবেন না। কোনো তথ্য শেয়ার করার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন। সেলিব্রেটিদের নিয়ে ব্যক্তিগত আলোচনা থেকে বিরত থাকুন।
  • আপনার পোস্ট অ্যাপ্রুভ না করা হলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে কারণ জানতে চাইতে পারেন। সেক্ষেত্রে পোস্টের স্ক্রিনশট জুড়ে দেবেন মেসেজের সঙ্গে।
  • আপনার পরিচিত কেউ গ্রুপে যোগদান করতে ইচ্ছুক হলে তাকে বলুন মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে আপনার রেফারেন্স দিয়ে কোড সংগ্রহ করতে, তারপর এই গ্রুপে জয়েন রিকোয়েস্ট পাঠাতে।
  • এই গ্রুপের তথ্য গ্রুপের বাইরে প্রকাশ করতে চাইলে অবশ্যই তথ্যদাতা এবং অ্যাডমিনদের অনুমতি নেবেন।
  • অ্যাডমিনদেরকে ব্যক্তিগত ইনবক্সে মেসেজ পাঠাবেন না। কোনো প্রশ্ন বা অভিযোগ থাকলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দেবেন।
মনে রাখবেন, বাস্তব জগতের মতো এখানেও বিভিন্ন ধর্মের মেয়ে আছেন। এখানে সবাই পরস্পরের প্রতি সম্মান বজায় রেখে প্রয়োজনীয় তথ্যসূত্রসহ আলোচনা করবেন।

হাওয়াইমিঠাইয়ের আচরণবিধি

হাওয়াইমিঠাই 'মেয়ে' নেটওয়ার্ক'-এর আওতায় বাংলাভাষী নারীদের লাইফস্টাইল গ্রুপ। স্বাস্থ্য, সাজগোজ, রান্নাবান্না, ঘরকন্না, কেনাকাটা ইত্যাদি প্রাত্যহিক অনুষঙ্গ নিয়ে হাওয়াইমিঠাইয়ের মতো ফুরফুরে মজাদার নন-জাজমেন্টাল আলোচনা হবে এখানে। এসব আলোচনা করতে কিংবা দেখতে আগ্রহী মেয়েরা এখানে যোগ দেবেন। সদস্যরা অবশ্যই 'মেয়ে নেটওয়ার্ক' সম্পর্কে মৌলিক ধারণা রাখবেন এবং গ্রুপের আচরণবিধি মেনে চলবেন।

মেয়ে নেটওয়ার্ক সম্পর্কে জানতে পারবেন এই লিংকে - http://meye2012.blogspot.com/2017/07/sisterhood.html

কোনো প্রশ্ন বা অভিযোগ থাকলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দেবেন। লিংক- https://www.facebook.com/meyenetwork/

পরিস্থিতির প্রয়োজনে গ্রুপের আচরণবিধি নিয়মিত আপডেট হবে। আপাতত কিছু মৌলিক বিধিনিষেধ রইলো এখানে:
  • আপনি ইতোমধ্যে 'মেয়ে: a Sisterhood' গ্রুপের সদস্য না হয়ে থাকলে আগে সেখানে যোগ দিন।
  • হাওয়াইমিঠাইতে যোগ দিয়ে নিজের পরিচয় দিন। কেন এই গ্রুপে এলেন আমাদের জানান। আপনি কী কী পারেন, কী কী জানেন আমাদের বলুন, যাতে প্রয়োজনে আপনার সাহায্য চাওয়া যায়।
  • খোলামনে আলাপ করার, পরস্পরকে সাহায্য করার মানসিকতা রাখতে হবে। কাউকে আঘাত করে (প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে) কিছু বলা যাবে না।
  • রেসিজম, সেক্সিজম, হোমোফোবিয়া, ছাগুত্ব, পাকিপ্রেম ইত্যাদির বিপক্ষে কঠোর অবস্থান থাকবে আমাদের। এই শব্দগুলোর অর্থ ও তাৎপর্য নিজ দায়িত্বে জেনে নিন।
  • গায়ের রঙ, বয়স, চেহারা, উচ্চতা, অসুস্থতা ইত্যাদি যেসব বিষয় প্রকৃতিপ্রদত্ত এবং অপরিবর্তনীয় সেগুলো নিয়ে নেতিবাচক কথা বলবেন না।
  • চেষ্টা করুন বাংলায় আলাপ করতে (বাংলিশে না)। ইংলিশও চলবে।
  • কোনো পোস্ট ফলো করতে পোস্টের ডানে উপরের কোনায় ক্লিক করে Turn on notification চাপুন, কিংবা প্রাসঙ্গিক কমেন্ট করুন। F লিখবেন না।
  • ছবি শেয়ার করতে সংযত থাকুন। একাধিক ছবি দিতে হলে কোলাজ করে দিন। (কীভাবে কোলাজ করবেন: যারা মোবাইল/ট্যাবলেট ব্যবহার করেন, তাঁরা অ্যাপ সেন্টারে গিয়ে 'Collage maker app' লিখে অনুসন্ধানে দিন, তারপর পছন্দসই অ্যাপ নামিয়ে ছবি কোলাজ করুন। আর যারা ডেস্কটপ ব্যবহার করেন, তাঁরা গুগল করুন 'Collage maker' লিখে এবং অনুসন্ধানের ফলাফল অনুসরণ করুন।)
  • অপ্রাসঙ্গিক কিংবা অহেতুক ছবি পোস্ট করবেন না। ছবির সাথে অন্তত দু লাইনের বর্ণনা জুড়ে দিন। সাজের ছবির সাথে ব্যবহৃত পণ্যের নাম, সাজের পদ্ধতি লিখে দিন। রান্নার ছবির সাথে রেসিপি লিখে দিন। সবার কাজে আসে এমন ক্যাপশন, রেসিপি বা রিভিউ ছাড়া ছবি দেবেন না।
  • বিনা অনুমতিতে অন্যের ছবি শেয়ার করবেন না। সাজপোশাকের রেফারেন্স হিসেবে অন্যের public ছবি শেয়ার করা যাবে। সেক্ষেত্রে পাবলিক লিংক শেয়ার করতে হবে, কিংবা এমনভাবে স্ক্রিনশট নিতে হবে যাতে ছবিটি যে public তা বোঝা যায়।
  • এমন কোনো ছবি বা ভিডিও শেয়ার করবেন না যা অন্যদের অস্বস্তির কারণ হতে পারে।
  • এমন কোনো তথ্য বা ছবি শেয়ার করবেন না যার অপপ্রয়োগ সহ্য করতে আপনি অক্ষম।
  • নিজে ব্যবহার না করে কোনো পণ্যের রিভিউ দেবেন না। আপনার বেলায় যা কাজে দিয়েছে অন্যের বেলায় তা নাও দিতে পারে, এটাও বলে দেবেন।
  • বিলাসদ্রব্যের সংগ্রহ প্রদর্শন থেকে বিরত থাকুন। এর পরিপ্রেক্ষিতে, আপনার ব্যবহৃত পণ্যের রিভিউ, রেটিং, সোয়াচ পোস্ট করতে পারেন- যেটাতে গ্রুপের সদস্যদের উপকার হয়।
  • কোনো প্রসাধনসামগ্রীর রিভিউ কিংবা ডায়েটের পরামর্শ দেওয়ার সময় পরামর্শদাতা তার বর্তমান দেশের নাম উল্লেখ করে দিবেন। সব দেশের আবহাওয়া এক নয়, তাই সব উপকরণ বা খাবার যেমন পাওয়া সম্ভব নয়, তেমনি এক দেশের আবহাওয়ায় যা সহ্য হয় , অন্য দেশের আবহাওয়ায় তাই বিপরীত ফলাফল দিতে পারে|
  • রঙ ফর্সাকারী পণ্য খুঁজবেন না, খুঁজে দেবেন না। বর্ণবৈষম্যকারী সব মতামত, পণ্য, প্রচারণার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান থাকবে আমাদের।
  • ব্যক্তিগত, সামাজিক, রাজনৈতিক তর্কের অবকাশ আছে এমন আলাপ এখানে করবেন না। তার জন্য 'মেয়ে: a sisterhood' আছে।
  • হোক্স (মিথ্যা খবর) শেয়ার করবেন না। কোনো তথ্য শেয়ার করার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন। সেলিব্রেটিদের নিয়ে ব্যক্তিগত আলোচনা থেকে বিরত থাকুন।
  • ধর্মীয় আলাপ বা ধর্মপ্রচার থেকে বিরত থাকুন। ধর্মীয় আলাপের জন্য আলাদা গ্রুপ আছে আমাদের।
  • বিনা অনুমতিতে এই গ্রুপে কেনাবেচা, প্রচারণা একদম নিষেধ। তার জন্য আলাদা গ্রুপ আছে আমাদের। সেখানে যোগ দিতে পারেন।
  • 'এই জিনিস কোথায় পাবো' বা 'এই জিনিসটা কেউ দিতে পারবেন' জাতীয় পোস্টগুলো হুটহাটে দিন।
  • কোন সদস্যকে তাঁর পোস্টের বা মন্তব্যের প্রেক্ষিতে ফেসবুক পেইজের লিঙ্ক দিয়ে সাহায্য করতে চাইলে সেই লিঙ্ক পোস্টে না দিয়ে তাঁর ইনবক্সে প্রদান করুন।
  • ভোট চাওয়া বা বিশেষ ক্ষেত্রে কোনো খবর প্রচার করতে হলে অ্যাডমিনদের সাথে আলাপ করুন।
  • আপনার পোস্ট অ্যাপ্রুভ না করা হলে মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে কারণ জানতে চাইতে পারেন। সেক্ষেত্রে পোস্টের স্ক্রিনশট জুড়ে দেবেন মেসেজের সঙ্গে।
  • আপনার পরিচিত কেউ গ্রুপে যোগদান করতে ইচ্ছুক হলে তাকে বলুন মেয়ে পেইজে মেসেজ দিয়ে আপনার রেফারেন্স দিয়ে কোড সংগ্রহ করতে, তারপর এই গ্রুপে জয়েন রিকোয়েস্ট পাঠাতে।
  • এই গ্রুপের তথ্য গ্রুপের বাইরে প্রকাশ করতে চাইলে অবশ্যই তথ্যদাতা এবং অ্যাডমিনদের অনুমতি নেবেন।
'মেয়ে' একটি কমিউনিটি। 'মেয়ে'র সব উদ্যোগের পেছনে অবশ্যই কোনো গঠনমূলক সামগ্রিক অর্জন থাকতে হবে। একজনের আলোচনায় যেন অন্যরা উপকৃত হই, তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে যেন আমরা সমৃদ্ধ হই এ ব্যাপারটা নিশ্চিত করতে হবে। গ্রুপের আবহ রক্ষা করতে যেকোনো সময় নিয়ম পরিবর্তন হতে পারে, পোস্ট ও কমেন্ট মুছে দেওয়া হতে পারে এবং মেম্বার রিমুভ করা হতে পারে। গ্রুপের আবহ বজায় রাখতে সবাই সহযোগিতা করুন। :)